পানি শোধনাগার নির্মাণ প্রকল্প নির্ধারিত সময়ে শুরু ও শেষ করার দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
7
রাজশাহীতে ভূ-উপরিস্থ পানি শোধনাগার নির্মাণ প্রকল্প নির্ধারিত সময়ে শুরু ও শেষ করা এবং ওয়াসার বর্ধিত পানির বিল প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে মতবিনিময় সভা করেছে জনউদ্যোগ রাজশাহী।
রবিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকাল সাড়ে ৫ টায় নগরীর আলুপট্টি মুক্তিযুদ্ধ পাঠাগারের জাতীয় শিক্ষক কর্মচারি ফ্রন্ট কার্যালয়ে জনউদ্যোগ রাজশাহীর আয়োজনে ও আইইডি’র সহযোগিতায় এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।
মতবিনিময় সভায় বক্তারা বলেন, বিগত কয়েকবছর যাবৎ রাজশাহীর সমতল ভূমির ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর বিভিন্ন জায়গায় দেড় ফুট, কোন কোন জায়গায় আড়াই ফুট পর্যন্ত নেমে যাচ্ছে। যা এ অঞ্চলের কৃষি ও আবহাওয়ার জন্য হুমকি স্বরুপ। জানা যায়, রাজশাহী জেলার তানোর উপজেলার বাধাইড় আমনুরা জংশন এলাকায় ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর (২.৫) ফুট নেমে গেছে।
এ অবস্থা থেকে পরিত্রানের জন্য কৃষি ও আবহাওয়া সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ভূ-গর্ভস্থ পানির ওপর চাপ কমানো ও ভূ-উপরিস্থ পানির ব্যবহারের ওপর গুরুত্ব দেন। এরই প্রেক্ষিতে এবছর ভূ-উপরিস্থ প্রাকৃতিক পানি যেমন নদী ও বৃষ্টির পানি ইত্যাদি কৃষি ও প্রাত্যহিক জীবনে ব্যবহার্য করার জন্য শোধনাগার নির্মাণ প্রকল্প অনুমোদন পেয়েছে। এতে চীনের একটি রাষ্ট্রয়াত্ব ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক ২৭০০ কোটি টাকা এবং বাকি ১৮০০ কোটি টাকা বাংলাদেশ সরকার বহন করবে। অনুমোদিত এ প্রকল্পটি ৪ মাস শেষ করার জন্য রাজশাহী ওয়াসা’কে দেয়া হয়েছে। তারা প্রকল্প অনুমোদন হওয়ায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এবং রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন’কে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।
মতবিনিময় সভায় জনউদ্যোগ রাজশাহীর সদস্য সচিব অধ্যক্ষ জুলফিকার আহমেদ গোলাপ’র সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান আলী বরজাহান, শিক্ষক নেতা সন্তোষ কুমার, সাংস্কৃতিক কর্মী খালেদা কেয়া, সিনিয়র সিটিজেন শান্তি রঞ্জন ভৌমিক প্রমুখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে